৯ লাখ ভোটারের জন্য প্রস্তুত আড়াই হাজার কক্ষ

রাত পোহালেই দক্ষিণ চট্টগ্রামের চার উপজেলায় ভোট। এ লক্ষে প্রস্তুত করা হয়েছে ৩৬৮টি ভোটকেন্দ্রের দুই হাজার ৪৯৭টি কক্ষ। চার উপজেলায় নয় লাখ ৩২ হাজার ৬৬৫ জন ভোটার ভোট দেবেন।

রোববার (২৪ মার্চ) উপজেলাগুলোতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।

পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপের তফসিল অনুযায়ী দক্ষিণ চট্টগ্রামের ছয় উপজেলায় ভোট হওয়ার কথা। তবে একক প্রার্থী হওয়ায় আনোয়ারায় ভোট হচ্ছে না। ব্যালট পেপার জটিলতায় লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ভোট হচ্ছে বোয়ালখালী, পটিয়া, চন্দনাইশ ও বাঁশখালী উপজেলায়।

এদিকে শনিবার (২৩ মার্চ) সকালে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে ভোটগ্রহণের মালামাল কেন্দ্রে কেন্দ্র পৌছেছে।

জেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, চার উপজেলায় ৩৬৮ জন প্রিসাইডিং, দুই হাজার ৪৯৭ জন সহকারি প্রিসাইডিং ও চার হাজার ৯৯৪ জন পোলিং কর্মকর্তা ভোটগ্রহণের দায়িত্বে থাকবেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান  বলেন, ‘সব প্রস্তুতি সম্পন্ন। গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে (ঝুঁকিপূর্ন) দুজন করে পুলিশ সদস্য, সাধারণ কেন্দ্রে একজন পুলিশ সদস্য এবং প্রতিকেন্দ্রে ১২ জন করে আনসার সদস্য দায়িত্বে থাকবেন। পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন ও জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটরা দায়িত্বে থাকবেন। র‌্যাব, পুলিশের একাধিক টিম নির্বাচনী এলাকায় টহলে থাকবে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলো থাকবে প্রশাসনের নজরদারিতে।’

প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন যেসব প্রার্থী

জেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, চার উপজেলায় ১২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ২৩ জন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে বোয়ালখালীতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নুরুল আলম ও স্বতন্ত্র আবদুল কাদের সুজন নির্বাচন করছেন।

পটিয়ায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, স্বতন্ত্র আফরোজা বেগম জলি ও সাজ্জাদ হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। চন্দনাইশে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের একেএম নাজিম উদ্দীন ও স্বতন্ত্র আবদুল জব্বার চৌধুরী।

বাঁশখালীতে আওয়ামী লীগের চৌধুরী মোহাম্মদ গালিব, স্বতন্ত্র মো. খোরশেদ আলম ও মৌলভী নুর হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

LATEST NEWS